আল্লাহর খিলাফত প্রতিষ্ঠার পদ্ধতি প্রিন্ট কর ইমেল
লিখেছেন অধ্যাপক গোলাম আযম   
Wednesday, 12 July 2006
আর্টিকেল সূচি
আল্লাহর খিলাফত প্রতিষ্ঠার পদ্ধতি
আল্লাহর একচ্ছত্র রাজত্ব
মানুষের ইসলাম
খিলাফতের দায়িত্বটা কী
খিলাফতের দায়িত্বের বিভিন্ন দিক
Image

সৃষ্টি জগতে মানুষের মর্যাদা

আল্লাহ তাআলা বিশাল সৃষ্টি জগতে যত প্রাণী সৃষ্টি করেছেন এর মধ্যে মানুষ, জিন ও ফেরেশতাকেই শুধু ভাল ও মন্দের বিচার-বিবেচনার যোগ্যতা দান করেছেন। এর মধ্যে ফেরেশতাকে মন্দ কাজ করার এখতিয়ার দেননি। তাদেরকে আল্লাহর হুকুম পালনের দায়িত্ব দিয়েছেন; হুকুম অমান্য করার কোন ক্ষমতা দেওয়া হয়নি। তাই ফেরেশতারা তাদের কাজের পুরস্কার পাওয়ার অধিকারীও নয়, শাস্তি পাওয়ার যোগ্যও নয়।

পুরস্কার ও তিরস্কার শুধু মানুষ ও জিন জাতির জন্য। এ দু‌’প্রকার প্রাণীকেই শুধু ভাল ও মন্দ উভয় রকম কাজ করার এখতিয়ার দেওয়া হয়েছে। মন্দ কাজের ক্ষমতা থাকা সত্তেও মন্দ না করে ভাল কাজ করার কারণে তারা পুরস্কার পাওয়ার অধিকারী। তেমনি ভাল কাজ করার ক্ষমতা থাকা সত্তেও মন্দ কাজ করার কারণে তারা শাস্তি পাওয়ার যোগ্য।

মানুষ এবং জিনের মধ্যে একটি বিরাট বিষয়ে পার্থক্য রয়েছে। আল্লাহ তাআলা মানুষের উপর পৃথিবীতে আল্লাহর খিলাফত কায়েমের দায়িত্ব দিয়েছেন। জিন জাতিকে এ দায়িত্ব দেওয়া হয়নি। নবী-রাসূলগণকে খিলাফত কায়েমের দায়িত্ব দিয়েই পাঠানো হয়েছে। জিন জাতির মধ্যে কোন নবী-রাসূল পাঠানো হয়নি। এতে প্রমাণিত হয় যে, মানুষই সৃষ্টির সেরা—আশরাফুল মাখলূকাত।



সর্বশেষ আপডেট ( Sunday, 15 August 2010 )