আমাদের টাইপ করা বইগুলোতে বানান ভুল রয়ে গিয়েছে প্রচুর। আমরা ভুলগুলো ঠিক করার চেষ্টা করছি ক্রমাগত। ভুল শুধরানো এবং টাইপ সেটিং জড়িত কাজে সহায়তা করতে যোগাযোগ করুন আমাদের সাথে।
মুসলমানদের অতীত, বর্তমান ও ভবিষ্যতের কর্মসূচি প্রিন্ট কর ইমেল
লিখেছেন সাইয়েদ আবুল আ'লা মওদুদী   
Saturday, 06 June 2009
আর্টিকেল সূচি
মুসলমানদের অতীত, বর্তমান ও ভবিষ্যতের কর্মসূচি
বিগত ইতিহাসের পর্যালোচনা
পাশ্চাত্য সভ্যতার বুনিয়াদ
আমাদের প্রতিক্রিয়া
আমরা কি চাই

মুসলমানদের অতীত, বর্তমান ও ভবিষ্যতের কর্মসূচি

[এটি মাওলানা মওদূদীর (রঃ) সেই ভাষণ, যা তিনি ১৯৫১ সালের ১১ ই নভেম্বর করাচীতে অনুষ্ঠিত জামায়াতে ইসলামীর সাধারণ সম্মেলনে প্রদান করেছিলেন।]

এর আগে আমি আমার বক্তৃতায় মুসলমানদের সামগ্রিক অবস্থার বিস্তারিত পর্যালোচনা করে এ কথা বলেছি যে, এখন আমাদের জীবনের এক একটি বিভাগে কি কি দোষ-ত্রুটি পাওয়া যায় এবং সে সবের কারণই বা কি। আজকের বক্তৃতায় আমি এ কথা বলবো যে, আমাদের কাছে কোন্‌ কর্মসূচি রয়েছে যার থেকে আমরা স্বয়ং এ আশা পোষণ করতে পারি এবং আপনাদেরকেও আমি এ আশ্বাস দিতে পারি যে, সে কর্মসূচি সংস্কার-সংশোধনের ফলপ্রসূ ও কার্যকর উপায় হতে পারে।

একটি ভুল ধারণা খণ্ডন

কিন্তু এ কর্মসূচি বয়ান করার আগে আমি একটি ভুল ধারণা দূর করে দিতে চাই যা এ ব্যাপারে সৃষ্টি হতে পারে। আমি যদি বর্তমান সময়ের দোষ-ত্রুটিগুলো এবং তার বর্তমান কারণগুলো উল্ল্লেখ করার পর নিজস্ব কর্মসূচি পেশ করি আর তার দ্বারা আপনাদেরকে সংশোধনের আশ্বাস দিই, তো এর থেকে আপনারা এ ধারণা যেন না করেন যে, এ সব লোক সম্ভবতঃ এ ধরনের কিছু সাময়িক ত্রুটি-বিচ্যুতি সংশোধনের জন্যে একত্র হয়েছে এবং পুরাতন অট্টালিকায় এ ধরনের কিছু মেরামত কাজ করাই তাদের উদ্দেশ্য। এমন ধারণা করা ঠিক হবে না। প্রকৃত ব্যাপার এই যে, আমাদের একটি স্থায়ী ও বিশ্বজনীন উদ্দেশ্য রয়েছে এবং তা হলোঃ

এমন প্রতিটি জীবনব্যবস্থা নির্মূল করতে হবে যা খোদাদ্রোহিতা এবং আখেরাত ও নবীগণের হেদায়েতের প্রতি চরম অবহেলা-ঔদাসীন্যের ভিত্তিতে রচিত। কারণ তা মানবতার জন্যে ধ্বংসকর। উক্ত ব্যবস্থা নির্মূল করে তার স্থানে এমন জীবন ব্যবস্থা বাস্তবে কায়েম করতে হবে যা আল্লাহর আনুগত্য, আখিরাতের প্রতি দৃঢ় বিশ্বাস এবং নবীগণের পদাঙ্ক অনুসরণের ভিত্তিতে রচিত হবে। কারণ এরই মধ্যে নিহিত রয়েছে মানবতার কল্যাণ। আমাদের যাবতীয় চেষ্টা-চরিত্রের প্রকৃত লক্ষ্য এটাই এবং আমাদের প্রতিটি কর্মসূচি তা কোনো সীমিত সময় ও স্থানের জন্যে হোক না কেন, ঐ লক্ষ্যপথের কোনো না কোনো স্তর অতিক্রম করার জন্যেই হয়ে থাকে। আমরা সর্বপ্রথম এ বিপ্ল্লব স্বয়ং আমাদের জন্মভূমিতে আনতে চাই যেন এ দেশ দুনিয়ার সংস্কার সংশোধনের উপায় হতে পারে। আমাদের দেশ পাকিস্তানের বর্তমান দোষ ত্রুটির আলোচনা আমরা এজন্যে করছি যে, তা আমাদের উদ্দেশ্যের পথে প্রতিবন্ধকস্বরূপ। অতএব আপনারা এ ধারণা করবেন না যে, এসব ত্রুটি বিচ্যুতির সংশোধনই আমাদের চরম লক্ষ্য অথবা আমরা একটি বিকৃত, অধঃপতিত সমাজ ব্যবস্থার নিছক সংস্কার করতে চাই। না, তা নয়, বরঞ্চ আমি বলছি যে, যদি এ সব ত্রুটি-বিচ্যুতি বিদ্যমান নাও থাকতো, তথাপিও আমরা সেই উদ্দেশ্যের জন্যেই কাজ করতাম, যা প্রথম দিন থেকেই আমাদের সামনে রয়েছে। আমাদের সে উদ্দেশ্য একটি স্থায়ী, শ্বাশ্বত ও বিশ্বজনীন উদ্দেশ্য এবং সকল অবস্থায় তার জন্যে আমাদের কাজ করতে হবে। দুনিয়ার কোনো স্থানে সাময়িকভাবে এক ধরনের সমস্যার উদ্‌ভব হোক কিংবা অন্য কোনো ধরনের, আমাদের আসল উদ্দেশ্যে কাজ করে যেতেই হবে।



সর্বশেষ আপডেট ( Sunday, 08 November 2009 )