আমাদের টাইপ করা বইগুলোতে বানান ভুল রয়ে গিয়েছে প্রচুর। আমরা ভুলগুলো ঠিক করার চেষ্টা করছি ক্রমাগত। ভুল শুধরানো এবং টাইপ সেটিং জড়িত কাজে সহায়তা করতে যোগাযোগ করুন আমাদের সাথে।
أخلاق المسلم বা একজন মুসলমানের চারিত্রিক গুণাবলী প্রিন্ট কর ইমেল
লিখেছেন ডঃ আহমাদ আলমাযইয়াদ ও ডঃ আদে'ল আশশিদ্দী   
Sunday, 05 November 2006
আর্টিকেল সূচি
أخلاق المسلم বা একজন মুসলমানের চারিত্রিক গুণাবলী
প্রথম পাঁচ গুণাবলী
দ্বিতীয় পাঁচ গুণাবলী
তৃতীয় পাঁচ গুণাবলী

ইসলামী চরিত্রের মৌলিক বিষয় সমূহ

 

৬. আত্মীয়তার সম্পর্ক বজায় রাখাঃ

আত্মীয়তার সম্পর্ক বজায় রাখা ইসলামী চরিত্রের অন্যতম। আর তারা হচ্ছে নিকটাত্মীয়গণ যেমনঃ চাচা, মামা, ফুফা, খালা প্রমূখ। আত্মীয়তার সম্পর্ক বজায় রাখা ওয়াজিব, আর তা ছিন্ন করা জান্নাতে প্রবেশ হতে বঞ্চিত ও অভিশাপের কারণ। আল্লাহ্ তা'আলা বলেনঃ

فَهَلْ عَسَيْتُمْ إِن تَوَلَّيْتُمْ أَن تُفْسِدُوا فِي الْأَرْضِ وَتُقَطِّعُوا أَرْحَامَكُمْ - أُوْلَئِكَ الَّذِينَ لَعَنَهُمُ اللَّهُ فَأَصَمَّهُمْ وَأَعْمَى أَبْصَارَهُمْ

[سورة محمد-22-23]

((যদি তোমরা প্রত্যাবর্তন কর তবে কি তোমরা পৃথিবীতে বিপর্যয় সৃষ্টি করবে এবং আত্মীয়তার সম্পর্ক ছিন্ন করবে, তারা তো ঐ সব লোক যাদের প্রতি আল্লাহ্ অভিশাপ করেছেন এতে তিনি তাদেরকে বধির করে দিয়েছেন এবং তাদের অন্তরদৃষ্টি অন্ধ করে দিয়েছেন।)) [সূরা মুহাম্মদঃ ২২-২৩]

রাসূল সাল্লাল্লাহু 'আলাইহি ওয়াসাল্লাম এরশাদ করেছেনঃ ((আত্মীয়তার বন্ধন ছিন্নকারী জান্নাতে প্রবেশ করবেনা।)) [বুখারী ও মুসলিম]

 

৭. প্রতিবেশীর প্রতি সুন্দরতম ব্যবহারঃ

প্রতিবেশীর প্রতি সুন্দরতম ব্যবহার হচ্ছে ইসলামী চরিত্রের অন্যতম। প্রতিবেশী হচ্ছে সে সব লোক যারা তোমার বাড়ীর আশেপাশে বসবাস করে। যে তোমার সবচেয়ে নিকটবর্তী সে সুন্দর ব্যবহার ও অনুগ্রহের সবচেয়ে বেশী হকদার। আল্লাহ্ তা'আলা বলেনঃ

وَبِالْوَالِدَيْنِ إِحْسَانًا وَبِذِي الْقُرْبَى وَالْيَتَامَى وَالْمَسَاكِينِ وَالْجَارِ ذِي الْقُرْبَى وَالْجَارِ الْجُنُبِ وَالصَّاحِبِ بِالجَنبِ

[سورة النساء-36]

((আর মাতা-পিতার প্রতি সদ্ব্যবহার কর, নিকটাত্মীয়, এতিম, মিসকীন নিকটতম প্রতিবেশী ও পার্শ্ববর্তী প্রতিবেশীর প্রতিও।)) [সূরা আন-নিসাঃ ৩৬]

এতে আল্লাহ্ নিকটতম ও দূরবর্তী প্রতিবেশীর প্রতি সদ্ব্যবহার করতে ওসিয়ত করেছেন। রাসূল সাল্লাল্লাহু 'আলাইহি ওয়াসাল্লাম এরশাদ করেনঃ ((জিবরীল আমাকে প্রতিবেশীর ব্যাপারে ওসিয়ত করতেছিল, এমনকি আমি ধারণা করছি যে প্রতিবেশীকে ওয়ারিশ বানিয়ে দেবে।)) [বুখারী ও মুসলিম]

অর্থাৎ, আমি মনে করেছিলাম যে ওয়ারিশদের সাথে প্রতি বেশীর জন্য মিরাসের একটি অংশ নির্ধারিত করে দেবে। রাসূল সাল্লাল্লাহু 'আলাইহি ওয়াসাল্লাম আবু যর রাদিয়াল্লাহু আনহুকে লক্ষ্য করে বলেনঃ ((হে আবু যর! যখন তুমি শুরবা পাক কর তখন পানি বেশি করে দাও, আর তোমার প্রতিবেশীদের অঙ্গিকার পূরণ কর।)) [মুসলিম] প্রতিবেশীর পার্শ্বোবস্থানের হক রয়েছে যদিও সে আল্লাহ্ এবং তাঁর রাসূলের প্রতি অবিশ্বাসী কাফের হয়।

 

৮. মেহমানের আতিথেয়তাঃ

ইসলামী চরিত্রের আরেকটি হচ্ছে মেহমানের আতিথেয়তা। রাসূল সাল্লাল্লাহু 'আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর বাণীঃ ((যে ব্যক্তি আল্লাহ্ এবং পরকালের প্রতি বিশ্বাস করে সে যেন তার মেহমানকে সম্মান করে।)) [বুখারী ও মুসলিম]

 

৯. সাধারণভাবে দান ও বদান্যতাঃ

ইসলামী চরিত্রের অন্যতম হচ্ছে দান ও বদান্যতা। আল্লাহ্ তা'আলা ইনসাফ, দান ও বদান্যতা কারীদের প্রশংসা করে বলেনঃ

الَّذِينَ يُنفِقُونَ أَمْوَالَهُمْ فِي سَبِيلِ اللّهِ ثُمَّ لاَ يُتْبِعُونَ مَا أَنفَقُواُ مَنًّا وَلاَ أَذًى لَّهُمْ أَجْرُهُمْ عِندَ رَبِّهِمْ وَلاَ خَوْفٌ عَلَيْهِمْ وَلاَ هُمْ يَحْزَنُونَ

[سورة البقرة-262]

((যারা আল্লাহ্ রাস্তায় নিজেদের সম্পদ ব্যয় করে অতঃপর যা খরচ করেছে তা থেকে কারো প্রতি অনুগ্রহ ও কষ্ট দেয়ার উদ্দেশ্য করে না, তাদের জন্য তাদের প্রতিপালকের নিকট প্রতিদান রয়েছে। তাদের কোন ভয় নেই এবং তারা দুশ্চিন্তাও করবে না।)) [সূরা আল বাকারাহঃ ২৬২]

রাসূল সাল্লাল্লাহু 'আলাইহি ওয়াসাল্লাম এরশাদ করেছেনঃ ((যার নিকট অতিরিক্ত বাহন থাকে, সে যেন যার বাহন নেই তাকে তা ব্যবহার করতে দেয়। যার নিকট অতিরিক্ত পাথেয় বা রসদ রয়েছে সে যেন যার রসদ নেই তাকে তা দিয়ে সাহায্য করে।)) [মুসলিম]

 

১০. ধৈর্য ও সহিষ্ণুতাঃ

ধৈর্য্য ও সহিষ্ণুতা হচ্ছে ইসলামী চরিত্রের অন্যতম। অনুরূপভাবে মানুষকে ক্ষমা করা, দুর্ব্যবহারকারীকে ছেড়ে দেয়া, ওযর বা বাহানাকারীর বাহানা গ্রহণ করা বা মেনে নেয়াও অন্যতম। আল্লাহ্ তা'আলা বলেনঃ

وَلَمَن صَبَرَ وَغَفَرَ إِنَّ ذَلِكَ لَمِنْ عَزْمِ الْأُمُورِ

[سورة الشورى-43]

((আর যে ধৈর্য্য ধারণ করল এবং ক্ষমা করল তার জন্য, নিশ্চয়ই এটা কাজের দৃঢ়তার অন্তভুর্ক্ত।)) [সূরা আশ শুরাঃ ৪৩]

রাসূল সাল্লাল্লাহু 'আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেনঃ ((তারা যেন ক্ষমা করে দেয় এবং উদারতা দেখায়, আল্লাহ্ তোমাদের ক্ষমা করে দেয়া কি তোমরা পছন্দ কর না?))

রাসূল সাল্লাল্লাহু 'আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেনঃ ((দান খয়রাতে সম্পদ কমে যায় না। আল্লাহ্ পাক ক্ষমার দ্বারা বান্দার মার্যাদাই বৃদ্ধি করে দেন। যে আল্লাহ্র জন্য বিনয় প্রকাশ করে আল্লাহ্ তার সম্মানই বৃদ্ধি করে দেন।)) [মুসলিম]

রাসূল সাল্লাল্লাহু 'আলাইহি ওয়াসাল্লাম আরো বলেনঃ ((দয়া কর, তোমাদের প্রতি দয়া করা হবে, ক্ষমা করে দাও তোমাদেরকেও ক্ষমা করে দেয়া হবে।)) [আহমাদ]



সর্বশেষ আপডেট ( Thursday, 26 August 2010 )